Home / SEO Bangla Tutorial / কিভাবে আপনার/ক্লাইন্টের সাইটকে গুগল এর প্রথম পেজে নিয়ে আসবেন। ভিডিও সহ মেগা পোস্ট।

কিভাবে আপনার/ক্লাইন্টের সাইটকে গুগল এর প্রথম পেজে নিয়ে আসবেন। ভিডিও সহ মেগা পোস্ট।

আসসালামু আলাইকুম। আইটি বাড়ি এর পক্ষ থেকে সবাইকে স্বাগতম। অনেক দিন পর আবার লিখছি। ফ্রীল্যান্স মার্কেটপ্লেসে এখন এসইও এর অনেক চাহিদা। এসইও নিয়ে ফেসবুক গ্রুপ খোলার পর থেকে এই পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি যে প্রশ্নটার সম্মুখীন হতে হয়েছে যে- “কিভাবে ক্লাইন্ট এর সাইট গুগল এর প্রথম পেজে নিয়ে আসব” হ্যাঁ, কথা কিন্তু পুরোই সত্য। এই ধরনের অনেক কাজ পাওয়া যায় বিভিন্ন ফ্রীল্যান্স মার্কেট গুলোতে যেমন- ওডেস্ক, ফ্রীল্যান্সার, ইল্যান্স ইত্যাদি। কিন্তু এক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় যে সমস্যাটি হয়ে দাড়ায়, বেশীরভাগ লোক যারা এসইও এর জগতে নতুন তারা বুঝতেই পারে না, কাজটি কোথা থেকে শুরু করবে, কি কি করবে, কিভাবে ক্লাইন্টকে কাজ সাবমিট করবে ইত্যাদি ইত্যাদি। এই রকম যারা যারা আছেন তাদের জন্যই আজকের এই টিউন।

তাহলে চলুন বিস্তারিত দেখে নিই এই ধরণের কাজ পেলে আপনাকে কি কি করতে হবেঃ

কথা আগে বাড়ানোর আগে একটু পেছনে যাই। যারা যারা এসইও এর কাজ জানেন না বা এসইও সম্পর্কে তেমন কোন ধারনা নেই তারা এই পোস্টটির অনেক কথা নাও বুঝতে পারেন। তাদের জন্য আমার পরামর্শ থাকবে আপনি আগে এসইও এর কাজ শিখে নিন। এসইও শেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন।

তো চলুন ফিরে আসা যাক, ধরে নিলাম আপনি এই রকম একটি কাজ পেয়েছেন। তাহলে আপনাকে যে যে কাজগুলো করতে হবে সেগুলো নিচে পয়েন্ট আকারে দিই তাহলে আপনাদের বুঝতে সুবিধা হবে-

local-seo-in-bangladesh
১. যাচাই করুন এসইও কোন ধরণের হবে-
এই ধরণের কাজে আপনার প্রথম কাজ হবে আপনার ক্লাইন্টকে জিজ্ঞেস করা যে উনি ঠিক কোন ধরণের এসইও চান? এখানে দুই ধরণের এসইও হতে পারে, একটা হতে পারে লোকাল এসইও আবার আরেকটা হতে পারে ওয়ার্ল্ডওয়াইড এসইও। লোকাল এসইও বলতে বোঝায় কান্ট্রি অনুযায়ি এসইও, যেমন- ক্লাইন্ট যদি চান তার সাইট Australia তে ভাল করুক তো এই ক্ষেত্রে তিনি সবার আগে লোকাল এসইও কেই প্রাধান্য দিবেন। কারন, সাধারন ভাবে ৮০% লোকই নিজ দেশের গুগল ব্যবহার করে। অনেকে হয়ত এটা ভাবছেন যে, গুগল তো গুগল ই, এটা আবার নিজ দেশের কি, আবার অন্য দেশেরই কি?
আপনিও যদি এমনটি ভেবে থাকেন তাহলে বলব, এখনি গুগলে যান, এবং উপরে যেখানে লিঙ্ক থাকে সেখানে দেখুন তো, http://google.com লিখা আছে নাকি http://google.com.bd লিখা আছে? কোনটা পেলেন? আপনার আইপি যদি বাংলাদেশের হয়ে থাকে বা আপনি যদি http://google.com কে ডিফল্ট হিসেবে সেট না করে থাকেন তাহলে অবশ্যই দেখবেন সেখানে http://google.com.bd লেখা আছে। ঠিক এই রকমই Australia এর জন্য http://google.com.au থাকে। বেশির ভাগ লোকই গুগলে সার্চ করার জন্য তাদের নিজেদের মানে লোকাল সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে। আর যদি আপনার ক্লাইন্টের সাইটটি লোকাল কোন কাজের জন্য হয়ে থাকে, যেমন- কোন হাসপাতাল বা কোন গাড়ির রিপেয়ারিং সাইট তাহলে তিনি চাইবেন লোকাল র‍্যাঙ্কিং এ আগে থাকতে। আর এই জন্যই আগে ভাল করে সিউর হয়ে নিন ক্লাইন্ট কি লোকাল গুগল এর রেজাল্টে টপে আসতে চান, নাকি http://google.com এর রেজাল্টে টপে আসতে চান। তবে, এক্ষেত্রে বলে রাখা ভাল যে, লোকাল গুগল এর সার্চ রেজাল্ট এবং ইন্টারন্যাশনাল গুগল এর সার্চ রেজাল্টে ৫-১০% পার্থক্য থাকতে পারে। আশা করি সবাই লোকাল এবং ইন্টারন্যাশনাল এসইও এর ব্যাপারটা বুঝতে পেরেছেন। না বুঝে থাকলে কমেন্টে জানাবেন, এই নিয়ে আরেকটা পোস্ট করব ইনশা-আল্লাহ।

onpage-optimization-bd
২. অনপেজ অপ্টিমাইজেশনটা সেরে ফেলুনঃ
এবার সবার আগেই আপনাকে যেটা করতে হবে সেটা হচ্ছে, ক্লাইন্টের সাইটের অনপেজ অপটিমাইজেশন। তবে এক্ষেত্রে আগে ভাল করে দেখে নিন, আগে থেকেই সেটা করা আছে কিনা। যদি করা থাকে তাহলে আর করতে হবে না। অনেকেই হয়ত বুঝতে পারছেন না, অনপেজ অপটিমাইজেশন আবার কি? এটা হচ্ছে এসইও এর প্রথম ধাপ। এসইও এর এই ধাপে কিছু কাজ করা হয় যার মাধ্যমে আপনার সাইটকে সরাসরি গুগল এ সাবমিট করা হয়। ভাল করে দেখে নিন, ক্লাইন্টের সাইটটি গুগলে সাবমিট করা আছে কিনা? সাইটটির জন্য গুগল ওয়েবমাস্টার টুল ব্যবহার করা হয়েছে কিনা। সাইটটিতে গুগল অ্যানালাইটিক আছে না। এখন ভাবছেন কিভাবে বুঝবেন এইগুলো আছে কিনা? সরাসরি ক্লাইন্টকেই জিজ্ঞেস করুন এই টুলস গুলো ব্যবহার করা আছে কিনা। ক্লাইন্ট ই বলে দিবে। যদি ব্যবহার করা হয়ে থাকে তাহলে দেখে নিন সঠিক ভাবে ব্যাবহার করা আছে কিনা, আর না থাকলে আপনি করে দিন।

অনপেজ অপটিমাইজেশন সম্পর্কে ধারনা পেতে আমাদের ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখুন:

 

need-time-in-seo

৩. একটু সময় নিনঃ

ধরলাম আপনার ক্লাইন্টের সাইটে আগে অনপেজ ছিল না এবং আপনি অনপেজ অপটিমাইজেশন করেছেন। এখন একদিন অপেক্ষা করুন। দেখুন ক্লাইন্ট এর সাইটে কোন পরিবর্তন আসে কিনা, এখানে আমি বোঝাতে চাচ্ছি, গুগল কে একদিন সময় দিন সাইটকে ক্রল করার জন্য এবং সাইটের অন্যান্য এইচটিএমএল Structure খতিয়ে দেখার জন্য। কারন ক্রল করতে বেশি সময় লাগবে না, কিন্তু আপনার সাইটের আরও অনেক কিছুই গুগল কে দেখতে হবে এই জন্য একদিন অপেক্ষা করুন এবং একদিন পর ওয়েবমাস্টার টুলস এ গিয়ে দেখুন কোথাও কোন গণ্ডগোল আছে কিনা। থাকলে ঠিক করে দিন।

গুগল ওয়েবমাস্টার্স টুলস কি জানতে আমাদের ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখুন:

keyword-analysis-in-bd
৪. এবার কিছু কিওয়ার্ড আন্যালাইসিস করুনঃ

এবার সময় হয়ে গেছে কিওয়ারড নিয়ে নাড়াচাড়া করার। আপনি যদি এসইও আগে জেনে থাকেন তাহলে অবশ্যই জানেন কিভাবে এসইও এর জন্য কিওয়ার্ড এ্যনালাইসিস করতে হয়। আপনার ক্লাইন্টের সাইটের মেইন কি ওয়ার্ড গুলো আগে এক জায়গায় লিখুন। তারপর সেই কিওয়ার্ড গুলো গুগল প্ল্যানার (আগের এডওয়ার্ড) টুলস এর সাহায্যে একটু দেখে নিন, এর কম্পিটিটর কেমন। দেখবেন এই রিসার্চ করতে গেলে রিলেটেড আরও অনেক কিওয়ার্ড বের হয়ে আসবে। সেগুলো ও লিখে রাখুন। এবার আপনার লিখা কিওয়ার্ড গুলো দিয়ে একটি এসইও নির্ভর মেটা ট্যাগ তৈরি করুন। সেই মেটা ট্যাগটি আপনার ক্লাইন্টের সাইটে স্থাপন করুন।

মেট্যা ট্যাগ নিয়ে আমাদের তিডিও টিউটোরিয়াল দেখুন:

কিওয়ার্ড অ্যানালাইসিস নিয়ে আমাদের ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখুন
পার্ট-১ঃ

পার্ট-২ঃ

ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের জন্য একটি এসইও সহায়ক প্লাগইন দেখুন এখানে:

content-in-seo-bd
৫. সাইটের কনটেন্ট নির্বাচনঃ
আপনার ক্লাইন্টের সাইটের কনটেন্ট নির্বাচন অতি জরুরী। কনটেন্ট গুলো যেন মান সম্মত হয় এবং এসইও নির্ভর হয় সেদিকে কড়া নজর রাখতে হবে। ক্লাইন্টের সাইটে আগে থাকতেই যে সকল পোস্ট থাকবে সেগুলো এডিট করুন। এখানে কিন্তু আমি, কনটেন্ট পরিবর্তন করতে বলছি না, আমি বলছি সেই পোস্ট গুলোতে মেটা ট্যাগ যুক্ত করুন, পুরো সাইটে দেখুন কোন ডুপ্লিকেট মেটা আছে কিনা? থাকলে রিমুভ করুন। তাছাড়াও সাইটে নতুন কনটেন্ট বা পোস্ট লিখার সময় খেয়াল রাখুন এসইও এর নিয়ম মেনে লিখছেন কিনা? আর যদি ক্লাইন্ট আপনাকে দিয়ে কনটেন্ট না লিখায়, তাহলে ক্লাইন্টকে পরামর্শ দিন যে, এই এই ভাবে এসইও মেনে কনটেন্ট লিখতে।

যারা যারা এসইও মেনে কিভাবে সবচেয়ে ইফেক্টিভলি কনটেন্ট লিখতে হয় জানতে চান, তারা আমাদের ভিডিও দেখুনঃ

৬. এবার শুরু করুন ব্যাকলিঙ্কঃ

এসইও তে ব্যাকলিঙ্ক খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটি আপনার সাইটের পেজর‍্যাঙ্ক বাড়াতে সাহায্য করে। অনেকেই বলে থাকেন এসইও তে হামিং বার্ড আপডেট আসার পর নাকি ব্যাকলিঙ্ক এর কোন গুরুত্ব নেই?!? কিন্তু কথাটা কতটা সত্যি বা কতটা মিথ্যা জানি না। আমার খুব রিসেন্টলি চলা ওডেস্ক এর একটি কাজে, আমি নিজে দেখেছি, নিয়মিত ব্যাকলিঙ্ক এর ফলে মাত্র দেড় মাসেই ক্লাইন্টের সাইটের পেইজর‍্যাঙ্ক ০ থেকে ৩ এ চলে এসেছে। বিশ্বাস না হলে নিজেই দেখে নিন-http://bostonmedicalgroup.com/

কাজেই শুরু করে দিন ব্যাকলিঙ্ক। এখানে যে কোন ধরনের ব্যাকলিঙ্ক করলেই হবে।(তবে ভুলেও স্প্যাম এর চিন্তা করবেন না। এখানে স্প্যাম বলতে- ব্যাকলিঙ্ক এর জন্য কোন অটো সফটওয়্যার ব্যবহার করা, স্প্যাম সাইটে লিঙ্ক দেয়া, লিঙ্ক ইন্টারচেঞ্জ ইত্যাদি বোঝায়।) তবে, বিশেষ করে, সোশ্যাল বুকমারকিং এবং ব্লগ কমেন্ট অনেক তাড়াতাড়ি রেজাল্ট দেয়। তবে ব্যাকলিঙ্ক এর জন্য লিঙ্ক খোজাই হল প্রধান সমস্যা। এই সমস্যা আর কোন সমস্যা থাকবে না আশা করি যদি আপনি নিচের ভিডিওটি দেখেন।

দেখে নিন কিভাবে ব্যাকলিঙ্ক এর জন্য লিঙ্ক খুজবেনঃ

৭. ধৈর্য ঃ

শেষ কথা হচ্ছে আপনাকে অবশ্যই ধৈর্য ধরতে হবে। কারন এসইও কোন অতি দ্রুত প্রসেস নয়। এটা আস্তে আস্তে রেজাল্ট দিবে। কাজ গুলো করতে থাকুন দেখবেন ক্লাইন্টের সাইটের ট্রাফিক এবং র‍্যাঙ্কিং এ ব্যাপক পরিবর্তন আসবে।

টিউন সহায়ক লিঙ্কঃ
এই টিউনটি আপনাকে আরও হেল্প করতে পারে।

এসইও তে যেভাবে ফার্স্ট পেজে আসবেন।

আরেকটি এসইও সহায়ক লিঙ্ক।

 

টিউনটি ভাল লেগে থাকলে ফেসবুকেও আপনার বন্ধুর সাথে শেয়ার করুন। নিচ থেকে এক ক্লিকেই আপনার বন্ধুর কাছে পৌঁছে দিন আমাদের টিউন। ভাল থাকবেন সবাই। আল্লাহ্‌ হাফিজ।

The following two tabs change content below.

আব্দুল কাদের (এডমিন)

নিজের সম্পর্কে বলার তেমন কিছুই নেই, খুব সাধারন একটি ছেলে। লিখাপড়া করছি কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টে। ছোটবেলা থেকেই টেকনোলোজির প্রতি ভীষণ আগ্রহ ছিল। তাই শেষপর্যন্ত টেককেই বেছে নিয়েছি পথ চলার সঙ্গী হিসেবে। কাজ করি ওয়েব ডেভেলপিং এবং ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে। ভালবাসি আইটি সংক্রান্ত নতুন কিছু শিখতে। আমার শেখা তখনই স্বার্থক যখন সেটা আমি আরেকজনের মাঝে ছড়িয়ে দিতে পারব। আর এই জন্যই প্রতিষ্ঠা করেছি আইটি বাড়ি। ইনশাআল্লাহ আমাদের স্বপ্নের লাল সবুজের ডিজিটাল বাংলাদেশ হবেই হবে।

30 comments

  1. আপনি এখানে একটা কথা বলেছেন যে আগে ক্লাইন্টের কাছ থেকে জানতে হবে সে লোকাল এস ই ও করাতে চায় না কি ওয়াল্ড ওয়াইড এস ই ও করাতে চায় , কিন্তু আপনি তো এখনে বলেন নি যে লোকাল এস ই ও করতে হবে আর গ্লোবাল এস ই করতে হলে কি করতে হবে সে ব্যাপারটা একটু ক্লিয়ার করে দিন ।

    • লোকাল এসইও এবং গ্লোবাল এসইও নিয়ে পরে টিউন করব, ইনশা-আল্লাহ্‌

      • ওকে অপেক্ষায় থাকলাম ২-৩ দিনের ভিতরে দিলে ভাল হয় । –

  2. ফাহিম মাহমুদ চিশতী

    আপনার এই পোস্ট টি পরে অনেক ভাল লাগলো । আমি এই প্রথন আপনার এই ওয়েব সাইটে
    সব গুল ভিডিও টিউতেরিয়াল ডাউনলোড করে দেকলে এস ই ও সম্পর্কে অনেক ভাল ধারনা হবে
    ধন্যবাদ ভাই আপনাকে

  3. great post
    Thanks for share this

  4. Hi bro

    this is resani from barisal. At first thanks for help the
    new comer to do seo work.Bro I can,t type bangla sorry for
    that.However I know seo a little.I complete My odesk profile
    but don,t get any jobs why.plz see My profile id
    https://www.odesk.com/users/~012c7f2a1bd42c27b4 .
    what is the problem

    Thanks

  5. Nice post Brother .I am very impressed for your tutorial.

  6. অনেক ভালো লাগলো!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *