ওয়েব ডিজাইন এবং SEO, এ দুটো জানা থাকলে ইন্টারনেট থেকে হাজার উপায়ে আয় করা সম্ভব [গুজব নয়, সত্যি!]

অনলাইনে আয় বলতেই আমরা অনেকে মনে করি গ্রাফিক্স ডিজাইন, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, ওয়েব ডিজাইন, অমুক তমুক আরো ব্লা ব্লা ব্লা হাবিজাবি অনেক কিছুই।

হ্যা, সত্যি সত্যি-ই সব গুলো কাজ শিখেই ইন্টারনেট থেকে আয় করা যায়।

কিন্তু আপনার জন্য কি সব?

বাস্তব জীবনে ডাক্তারি, ইঞ্জিনিয়ারিং, শিক্ষকতা, রাজনীতি ইত্যাদি বিভিন্ন পেশা আছে। সব গুলো পেশা থেকেই তো আয় করা যায়, কিন্তু ইনকাম করা গেলেই তো একজনের অন্য সব পেশা নয় তাইনা?

তাহলে কোনটা আপনার জন্য?

আজকের এই পোস্টে আমি আপনাকে এমন কিছু কাজের কথা বলব যেটা শিখলে আপনি অনলাইনে ক্লাইন্টের হয়ে চাকরী অর্থাৎ ফ্রীল্যান্সিং করতে পারবেন আবার চাইলে নিজেই অনলাইনে ব্যবসাও করতে পারবেন! তবে এটা কোন “রাতারাতি ধনী হওয়ার গোপন মন্ত্র”- নয়!

যদি আগামী ৫ মিনিট বাকী সব কাজ ফেলে রেখে একাগ্রতার সাথে কিছু কাজের কথা পড়তে চান তাহলেই কেবল নিচের দিকে আগান, এছাড়া নয় 🙂

তো চলুন, আপনাকে একটি প্রশ্ন দিয়ে শুরু করা যাক, বাস্তব জীবনে ব্যবসা করার জন্য মিনিমাম কিসের প্রয়োজন হয়?

উত্তরে অনেকেই বলবেন কিছু পুজি, ক্যাশ তবে সেগুলো তো লাগবেই, তার সাথে যেটা না হলেই নয় সেটা হচ্ছে কমপক্ষে একটা অফিস, বা ছোট্ট কোন দোকান বা একদম নূন্যতম একটা ঠিকানা যেখানে গেলে ওই ব্যবসার অস্তিত্ব পাওয়া যাবে। (এমনকি ফুটপাতের দোকানেরও কিন্তু একটা লোকেশন থাকে)

কেন?

কারন, ঠিকানা না থাকলে মানুষ আপনাকে খুজবে কোথায়, আপনার পণ্য বা সার্ভিস নিবে কিভাবে। এজন্যই মিনিমাম একটা ঠিকানা থাকতেই হবে ব্যবসার জন্য।

এবার যদি আমি আবারো আপনাকে জিজ্ঞেস করি, ইন্টারনেট তো ধরা যায় না, তাহলে সেখানে ব্যবসার জন্য মিনিমাম কি প্রয়োজন?

চমৎকার প্রশ্ন তাইনা?

-হ্যা ইন্টারনেটে ব্যবসা করতে গেলেও নূন্যতম কিছু একটা প্রয়োজন হয়। আর সেটা হচ্ছে একটি ওয়েবসাইট! ওয়েবসাইট হচ্ছে ইন্টারনেট ভিত্তিক ব্যবসার প্রধান ঠিকানা।

যেমন আপনি এই মুহূর্তে আমাদের ওয়েবসাইটে আছেন এবং আমাদের একটি আর্টিকেল পড়ছেন। এখন আপনি যে ওয়েবসাইটে এই লিখাগুলো পড়ছেন, এটাই হচ্ছে অনলাইনে আমাদের প্রতিষ্ঠানের প্রথম পরিচিতি।

তার মানে এইটুকু ক্লিয়ার যে অনলাইনে ব্যবসা করতে গেলে ওয়েবসাইট লাগে (পয়েন্টটা মনে রাখবেন)

এবার আসা যাক, ওয়েবসাইট থাকার পরে কি লাগে?

ধরে নিলাম, আপনার ক্লাইন্ট বা আপনি অনলাইনে লেডিস হ্যান্ডব্যাগ বিক্রির ব্যবসা করবেন। তো এর জন্য একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে ফেললেন। ওয়েবসাইট তৈরি করার মাধ্যমে অনলাইনে আপনার একটি ঠিকানা তৈরি হল। তার মানে আপনার ওয়েব অ্যাড্রেসে (যেমন ধরুন- www.your-website-address.com) গিয়ে যে কেউ আপনার ওই অনলাইন দোকান বা ওয়েবসাইট টি দেখতে পারবে।

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, একটি দোকান দিয়ে বসে থাকলেই কি আটোমেটিক কাস্টমার আসতে থাকবে?

মোটেও নয়, কাস্টমার নিয়ে আসার জন্য আপনার পণ্যের প্রচার বা মার্কেটিং করতে হবে। এটা তো বাচ্চা ছেলেও বোঝে 🙂

যত বেশি প্রচার তত বেশি সেল তাইনা? (সবাই জানে এটা)

কথাটা ভুল! প্রচার করার মানেই সেল বাড়া নয়। এটা অনেক বড় একটা মিথ্যা যা যুগ যুগ ধরে মানুষ বিশ্বাস করে আসছে! লাইনটা এভাবে হওয়া উচিত- সাম্ভাব্য ক্রেতার কাছে যত বেশি প্রচার, তত বেশি সেল 🙂

বিষয়টা মনে করুন, আমি একজন অবিবাহিত ছেলে, আমার কাছে যদি আপনি আপনার লেডিস হ্যান্ডব্যাগের মার্কেটিং করেন তাহলে কি সেল হবে? মোটেও নয়। এমন আমার মত হাজার মানুষের কাছেও যদি ওই লেডিস প্রোডাক্ট এর মার্কেটিং করেন তবুও কিন্তু কাজ হবে না।

কারন আমাদের তো ওই প্রোডাক্ট এর প্রতি আগ্রহ ই নেই, আমরা তো আর এর সাম্ভাব্য ক্রেতা নই।

বরং,

আপনি যদি এমন মেয়েদের কাছে ওই ব্যাগের মার্কেটিং করেন যারা হ্যান্ডব্যাগ খুজছে অথবা এমন ছেলের কাছে মার্কেটিং করেন যে তার প্রিয়তমাকে হ্যান্ডব্যাগ গিফট করতে চাচ্ছে তাহলে কিন্তু সেল হওয়ার চান্স অনেক অনেক বেশি থাকে।

কিছু কি মাথায় ঢুকেছে? আমার পয়েন্ট কিছুটা কি বুঝতে পারছেন?

শুধু মার্কেটিং নয়, বরং আপনার পণ্যের প্রতি ইন্টারেস্ট বা আগ্রহ আছে এমন লোকের কাছেই মার্কেটিং করলে দ্রুত সেল বাড়ানো সম্ভব।

এবার আসি কাজের কথায়, অনলাইনে কিভাবে সেল বাড়ানো যাবে?

ইন্টারনেটে এই ধরণের টার্গেট সেলের অন্যতম একটি উপায় হচ্ছে SEO. টার্গেটকৃত ক্রেতার কাছে পণ্য পৌঁছে দেয়ার অন্যতম মূখ্য মার্কেটিং পলিসি হচ্ছে SEO। ডিজিটাল মার্কেটিং ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম বৃহৎ অংশ এটি।

SEO (Search Engine Optimization) কি? এক কথায় বলে দিলে- সার্চ ইঞ্জিন যেমন Google এর সার্চ রেজাল্টে যে কোন ওয়েবসাইটের র‍্যাংকিং করানোর প্রক্রিয়াকে SEO বলে। নতুন অবস্থায় বুঝতে অসুবিধা হলে সহজভাবে বুঝে নিন SEO হচ্ছে এক ধরণের ডিজিটাল মার্কেটিং।

web design and seo

উপরের এতগুলো কথা যদি ভালভাবে পড়ে থাকেন তাহলে এটা অন্তত বুঝে গেছেন যে, ইন্টারনেটে যে ব্যবসাই থাকুক না কেন দুইটা জিনিস লাগবেই লাগবে,

এক হচ্ছে ওয়েবসাইট বা অনলাইনে তার ব্যবসার ঠিকানা যেখান থেকে অর্ডার করা হবে আর দুই হচ্ছে SEO- যেটার মাধ্যমে সেল আসবে

যদিও এ দুটি ছাড়াও সেল বাড়ানোর আরো অনেক উপায় আছে কিন্তু এ দুটোই হচ্ছে প্রাথমিক এবং না হলেই নয় এমন জরুরী কাজ।

এখন ভাবুন তো, প্রতিটি ব্যবসাতেই যেহেতু এটির প্রয়োজন হয় আর আপনি যদি এ দুটো কাজ শিখে এ দুটো সেক্টরে নিজেকে দক্ষ করে ফেলতে পারেন তাহলে আপনার কি আর কাজের অভাব হবে?

আপনি যদি ক্লাইন্টের হয়ে কাজ করেন বা ফ্রীল্যান্সিং করেন তাহলে ক্লাইন্টের ও তো অনলাইনে একটি ব্যবসা থাকবে তাইনা। কারন তার অনলাইনে ব্যবসা আছে দেখেই তো সে লোক খুজছে ইন্টারনেটে কাজ করানোর জন্য।

তাহলে এ দুটো তার প্রয়োজন হবে আর আপনি তাকে এই সার্ভিস দিতে পারবেন। এমনভাবে প্রায় প্রতিটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকেই আপনি সার্ভিস দিতে পারবেন।

অপরদিকে, যেহেতু অনলাইনে ব্যবসা করার জন্য এ দুটো হচ্ছে কোর এবং প্রধান চাহিদা এজন্য আপনি এ দুটো শিখে ফেললে নিজেও অনলাইনে একটা ব্যবসা শুরু করতে পারবেন।

তার মানে দাড়াচ্ছে, আপনি ওয়েব ডিজাইন এবং SEO, এ দুটো জিনিস শিখলে ইন্টারনেটে চাকরী বা ফ্রীল্যান্সিং ও করতে পারবেন এবং চাইলে নিজের ব্যবসাও করতে পারবেন

ওয়েব ডিজাইন + SEO জানা থাকলে যেসব উপায়ে আয় করতে পারবেনঃ

  • প্রথমত ফ্রীল্যান্সিং করে আয় করতে পারবেন যেমন- আপওয়ার্ক, ফ্রীল্যান্সার, ফাইভার ইত্যাদি সাইটে কাজ করতে পারবেন
  • নিজে ই-কমার্স ব্যবসা বা অনলাইনে পণ্য বিক্রি করতে পারবেন
  • একটি ব্লগসাইট করে সেখানে কন্টেন্ট দিয়ে সেটার SEO করে ট্রাফিক নিয়ে আসতে পারবেন
  • সাইটে ট্রাফিক বা ভিজিটর আনার পরে Google Adsense থেকে আয় করতে পারবেন
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য এই নলেজ গুলোর প্রয়োজন
  • বিশেষ করে অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য এইগুলা জানা বাধ্যতামূলক
  • CPA মার্কেটিং কে যদি অ্যাডভান্স লেভেলে নিয়ে যেতে চান তাহলে এইগুলা জানতে হবে
  • লোকাল মার্কেটেও ওয়েবসাইট ডিজাইন সার্ভিস শুরু করতে পারেন
  • আশে পাশে দিন দিন ওয়েব ডিজাইনার, ডেভেলপার এবং SEO দের জবের চাহিদা অনেক বাড়ছে, অনায়াসেই এমন জবে যোগদান করতে পারেন
  • নিজেই একটি আইটি ফার্ম খুলে এই বিষয়ক সার্ভিস দেয়া শুরু করতে পারেন
  • এ রকম আরো হাজার রকমের উপায় বের করা সম্ভব যা হয়ত আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না!!…

এখন ভেবে দেখুন,

এ দুটো শিখলে আপনি চাইলে ফ্রীল্যান্সিং করে আয় করতে পারছেন, চাইলে অনলাইনে নিজের ব্যবসা শুরু করার মত টেকনিক্যাল নলেজ অর্জন করতে পারছেন বা চাইলে লোকাল কোন আইটি ফার্মে জব ও করতে পারছেন।

শুধুমাত্র আইটি ফার্ম নয়, যেহেতু আজকাল প্রায় প্রতিটি প্রতিষ্ঠানই ইন্টারনেটে বিক্রির সম্ভাবনা উপলব্ধি করতে পারছে কাজেই তারাও নিজেদের ওয়েবসাইট তৈরি, সেগুলো মেইনটেইন করা, এসইও করা এসবের জন্যও আলাদাভাবে এমপ্লয়ি নিয়োগ দিচ্ছে। ফলে যে কোন কোম্পানীতেই এই চাকরীর সুযোগ তৈরি হতে যাচ্ছে, যার ডিমান্ড এক সময় অনেক উপরে থাকবে।

কাজেই আমার সাজেশন- এ দুটো শিখে নিজেকে সকল প্রকার চ্যালেঞ্জের জন্য প্রস্তুত করুন

কিভাবে শিখবেন এই কোর্স গুলো?

যে কোন কিছু শেখার সবচাইতে কমন উপায় হচ্ছে কোর্স করা। কিন্তু এই দুটি বিষয় প্রোপারলি শিখে কোর্স করতে গেলে আপনাকে মিনিমাম ৩০-৪০ হাজার টাকা খরচ করতে হবে। এর পরে প্রতিষ্ঠানে গিয়ে কোর্স করতে প্রতিদিন কোর্স এর ২ ঘণ্টা এবং সেখানে যেতে আসতে রাস্তায় ৩ ঘণ্টা, মোট ৫ ঘণ্টা টাইম নষ্ট হয়। এরপরে কোন একদিন মিস দিলে সেটাতে পিছিয়ে পরতে হয়।

এগুলোর থেকে বড় যে সমস্যা সেটি হচ্ছে এদেশের ৯৯% প্রতিষ্ঠানে সঠিকভাবে কোর্স করায় না। ঢাকাতে অল্প কিছু প্রতিষ্ঠান থাকলেও ঢাকার বাইরে একেবারেই নেই বললেই চলে।

এরজন্য বাধ্য হয়ে অনেকেই কাজ শিখতে বড় ভাইদের কাছে যান। কিন্তু কার এত টাইম আছে নিজের খেয়ে আপনাকে শেখানোর?

গুগল, ইউটিউব?

অনেকেই শেষমেশ দিশা না দেখে গুগল, ইউটিউবে সার্চ করে করে শেখা শুরু করে। হ্যা, গুগল, ইউটিউবে সার্চ করে সত্যি সত্যি ই শেখা যায়, কিন্তু তাদের সব থেকে বড় যে সমস্যা সেটি হচ্ছে সেখানে শূন্য থেকে গুছিয়ে ধাপে ধাপে সামনের দিকে নেয়ার মত কিছু নেই।

ব্যাপারটা হচ্ছে অনেকটা এই রকম, মনে করুন আপনি ইংরেজী ভাষা শিখবেন। এর জন্য আপনাকে ABCD এবং বিভিন্ন Vocabulary বা শব্দ জানতে হবে। আপনি যদি বেসিকটা জানেন তখন আপনাকে রচনা লিখতে দিলে সেটা একটু হেল্প নিয়ে লিখতে পারবেন। কিন্তু তার জন্য তো বেসিকটা জানা লাগবে।

আর এই ইউটিউব গুগলে এই বেসিক ভিত্তিটা সুন্দর করে সাজিয়ে দেয়া থাকে না। সেখানে আপনি হয়ত অনেক বড় বড় প্রশ্নের/সমস্যার সমাধান অনায়াসে পেয়ে যাবেন কিন্তু সেই অ্যাডভান্স লেভেলের বিষয়টা দেখে আপনি কেবলমাত্র তখনই বুঝতে পারবেন যখন আপনার বেসিক নলেজ শক্তপোক্ত থাকবে।

তাহলে এর সমাধান কি হতে পারে?

দেখুন শুধুমাত্র এই এসইও এবং ওয়েব ডিজাইন ই নয়, পৃথিবীর যে কোন কিছু শেখার সব থেকে কার্যকরী এবং টাইম সেভিং উপায় হচ্ছে ভিডিও টিউটোরিয়াল। এটি হচ্ছে এমন এক ধরণের সিস্টেম যেখানে আপনি ভিডিও দেখার মাধ্যমে ঘরে বসেই যে কোন কিছু শিখে ফেলতে পারেন।

এর একটি সুবিধা হচ্ছে কোচিং এ গিয়ে অযথা সময় নষ্ট না করে ঘরে বসেই দেখতে পারেন। এছাড়াও একই ভিডিও বার বার প্লে করে দেখার মাধ্যমে একটি বিষয় অত্যন্ত গভীরভাবে জানা যায়।

তাছাড়া ভিডিও টিউটোরিয়াল এর মূল্য সাধারণত সরাসরি কোচিং এর থেকে অনেক গুন কম হয়। এক্ষেত্রে কোয়ালিটি ভিডিও টিউটোরিয়াল পেলে আপনি অর্থ এবং সময় উভয়দিক দিয়েই লাভবান হতে পারেন।

আপনি যদি প্রতিদিন মাত্র ২-৩ ঘণ্টা সময় দিয়ে এসইও এবং ওয়েব ডিজাইন এ দুটো বিষয় শিখে ইন্টারনেটে নিজের ক্যারিয়ার শুরু করতে চান, তাহলে আইটি বাড়ি প্রকাশিত ওয়েব গুরু এবং SEO ভিডিও কোর্সটি সংগ্রহ করতে পারেন।

এ দুটো কোর্সে একদম শূন্য থেকে হাতে ধরে কিভাবে এসইও শিখবেন এবং ওয়েবসাইট তৈরি করবেন তার বিস্তারিত থিউরিক্যাল এবং প্র্যাক্টিক্যাল ভিডিও রয়েছে এখানে।

এখানে এসইও কোর্সে SEO এর বেসিক থেকে অ্যাডভান্স এবং ওয়েব গুরু নামক কোর্সে ওয়েব ডিজাইন+ডেভেলপমেন্ট দেখানো হয়েছে।

এদুটো কোর্স দেখে ইতিমধ্যেই অনেকে ইন্টারনেট থেকে সফল ভাবে ইনকাম করছেন। এবং এগুলো রকমারি.কম এর লক্ষাধিক বইয়ের ভেতরে প্রায়ই বেস্টসেলার এর তালিকায় থাকে।

সংক্ষেপে SEO ডিভিডিতে যা যা আছেঃ

  • SEO কি কেন কিভাবে?
  • টপ র‍্যাংকিং ফ্যাক্টর
  • প্র্যাক্টিক্যাল কিওয়ার্ড রিসার্চ
  • নিশ রিসার্চ
  • কন্টেন্ট রাইটিং টিপস
  • পুরো অনপেইজ অপ্টিমাইজেশন আউটলাইন
  • প্র্যাক্টিক্যালি অনপেইজ অপ্টিমাইজেশন করা
  • Yoast SEO, Meta Tag, Permalink, Google/Bing Search Console/Webmaster, Link Disavow, Robots.txt, Sitemap.xml, Cannonical URL 301,302 Redirection, Analytic ইত্যাদি যাবতীয় বিষয় এখানে দেখানো হয়েছে প্র্যাক্টিক্যালি করার মাধ্যমে
  • অফ পেইজ অপ্টিমাইজেশনের উপরে রয়েছে বহু প্র্যাক্টিক্যাল এবং অ্যাডভান্সড লেসন
  • থাকছে অ্যাডভান্সড লিঙ্ক বিল্ডিং স্ট্রাটেজি (আগের দিনের একই ফালতু সিস্টেম নয়)
  • Forum posting, Web 2.0, Guest Posting, Email Outreach, Sponsored Link Building, Broken Link Building, Infographic Link Building ইত্যাদি যাবতীয় বিষয় নিয়েই ভিডিও দেখানো হয়েছে

এর পরে ওয়েব গুরু (ডিজাইন+ডেভেলপমেন্ট) ডিভিডিতে যা যা আছেঃ

  • HTML 4+5
  • CSS 3
  • Responsive Web Design
  • PSD to HTML
  • Bootstrap 4
  • Javascript, jQuery
  • Basic PHP
  • WordPress Theme Development

এ দুটো কোর্সের শেষে অনলাইনে এই নলেজগুলো দিয়ে কিভাবে আয় করা যায় সে সম্পর্কে গাইডলাইনমূলক ভিডিও রয়েছে। যা দেখে বেশ ভাল গাইডলান পাওয়া যাবে সফলতার জন্য।

এই ভিডিও দেখে শিখে সফল হতে পারবেন কিনা যাচাই করে সরাসরি ডিভিডি থেকে নেয়া কিছু ডেমো ভিডিও দেখে নিনঃ

এসইও এর ডেমো ভিডিওঃ

ওয়েব গুরু এর ডেমো ভিডিওঃ

এই কোর্স দুটোর মূল্য কত?

দুটো কোর্সের রেগুলার প্রাইস ৫০০০ টাকা একসাথে।

কিন্তু স্টুডেন্ট এবং অনলাইনের প্রতি মানুষের আগ্রহকে বৃদ্ধি করার লক্ষে আমরা এই কোর্সগুলো বিশেষ ছাড়ে দিচ্ছি মাত্র ২৪৯০ টাকায়! [মাত্র ৩ মাসের ইন্টারনেট বিল!!]

[এ সুযোগ বেশিদিন নাও থাকতে পারে]

এটা কোন খরচ নয়, এটা আপনার ফ্রীল্যান্সিং ক্যারিয়ারের প্রতি এটা সবচাইতে গুরুত্বপুর্ন ইনভেস্টমেন্ট

এই সুবর্ণ সুযোগ মিস হওয়ার আগেই সংগ্রহ করে নিন আপনার কপি!! (নিচ থেকে অর্ডার করুন)

use comma if more than one number
0.00

* তথ্য জানার প্রয়োজনে সরাসরি ডায়াল করুন- 09604400400(10AM-9PM) অথবা, ফেসবুক পেইজে মেসেজ করুন এখানে

এই আর্টিকেল থেকে কিছুটা হলেও উপকৃত হয়েছেন? কোন বন্ধু/বান্ধবীর সাথে শেয়ার করে তার উপকার করতে পারেন কি? এখনই শেয়ার করুন এখানে ক্লিক করে

আপনার যে কোন প্রশ্ন ফেসবুকে করতে পারেন এখানে ক্লিক করে

ফেসবুকে শেয়ার করুন-

Share on facebook
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on reddit

10 Responses

  1. I like to learn SEO from you to earn money from the source.
    Thanksfor your everything you have for us.
    Yours sincerel,
    Zecharia.

    1. আপনার আগ্রহের জন্য ধন্যবাদ, আমাদের SEO এবং ওয়েব ডিজাইন সহ যাবতীয় কোর্সের তালিকা এই লিঙ্ক থেকে পাবেন- https://itbari.com/all-bangla-tutorial/

    1. টিউটোরিয়াল এ দেখানো গাইডলাইন ঠিকঠাক মত ফলো করলে ইনশাআল্লাহ সম্ভব।

    1. ভাইজান, এ দামটা শুধুমাত্র ২-৩ মাসের ইন্টারনেট বিলের সমান। যেটা দেখে কাজ শিখবেন এবং আয় করতে চাচ্ছেন, সেটার পেছনে যদি এইটুকু ইনভেস্ট করতে না পারেন তাহলে ফ্রীল্যান্সিং এর চিন্তা করাটা আমার কাছে যুক্তিসংগত মনে হয় না। এটাকে খরচ মনে করলে সফলতা অর্জন করতে পারবেন না ভাই, এটাকে ইনভেস্টমেন্ট মনে করতে হবে। জ্ঞানের প্রতি ইনভেস্ট করলে পেকেটে টাকা আসবে, সঠিক জ্ঞান আপনাকে ধোকা দিবে না। ধন্যবাদ।

  2. প্রিয় আব্দুল কাদের স্যার,
    আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ যে আপনি এত সুন্দর একটা প্রতিষ্ঠান তৈরি করেছেন ! আমি বেশ কিছুদিন যাবৎ অনলাইনে কাজ করার মত কাজ শিখতে চাইতেছি ! কিন্তু কোনটা শিখবো, কি শিখবো, কিভাবে শিখবো, কার কাছে শিখবো, এগুলো ভেবে যখন আমি অস্থির তখনি আপনার তৈরি it-bari.com এর সন্ধান পাই ! কিভাবে পেয়েছি জানি না তবে অনেক খোজা খুজির পরই এমন একটা বিশ্বস্ত ও নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান পেয়েছি ! এর আগে আমি আরো অনেকের টিউটোরিয়াল দেখেছি ! তাদের নাম উল্লেখ করে কারো মনে দুঃখ দিতে চাই না ! বাট আপনার তৈরি করা টিউটোরিয়াল গুলো খুবই সহজ, অনেক খুদ্র থেকে খুদ্র বিষয় নিয়ে আলোচনা করা ১০০% কোয়ালিটি সম্পুর্ন ! এটা দেখে যে কেউই খুব সহজেই শিখতে পারবে বলে আমি মনে করি ! আমি এটা দেখে এবং আপনার পোষ্ট করা ঐ পঙ্গু ছেলেটারও সাকসেস হওয়ার স্টোরি দেখে মনে অনেকটা সাহস পেয়েছি ! আমিও ৮ ক্লাস পড়াশোনা করেছি ! যদি ওর মত ছেলে পারে তবে আমি কেনো পারবো না ! এই সাহস নিয়ে এবং আপনার সহযোগীতা নিয়ে সামনের পথে পা বাড়িয়েছি ! তবে দুর্ভাগ্য যে আমি এখনো আপনার টিউটোরিয়াল কিনতে পারিনি ! তবে না কিনতে পেরে আমার মনে অনেক দুঃখ তাই অতি শীঘ্রই আপনার টিউটোরিয়াল কিনবো ! বাট আপনার একটা বিষয়ে খারাপ লেগেছে তা হলো এত সুন্দর করে সাজানো গোছানো এবং ১০০% কোয়ালিটি সম্পর্ন টিউটোরিয়াল এত কম দামে দিয়েছেন ! তবে তার চেয়েও খারাপ লেগেছে একটা কমেন্ট দেখে যে কমেন্টসে বলা হয়েছে আরো কম দামে টিউটোরিয়াল দিতে ! সেদিন তো দেখলাম আপনার ফেসবুক পেজে এক লোক বলেই দিয়েছে “এরকম আরো অনেক টিউটোরিয়াল ফ্রীতে দেয় তাহলে আপনি কেনো গরিব মেধাবী স্টুডেন্টদের জন্য ফ্রী দেন না“! এটা দেখে মনে মনে বলেছিলাম মানুষের চাহিদা, মানুষের মন কতটা সংকির্ন হলে এমন কথা বলতে পারে ! এখন ২০১৮ সাল চলে ! এই সময়ে যত গরিব এমনকি ফকির মিসকিন ও যদি হয় তাদের কাছে ২ হাজার টাকা কোনো ব্যাপারই না ! লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকামের জন্য ২ হাজার টাকা একটা অতি সামান্য এবং খুবই কম ! তাই আমি চাই আপনার তৈরি টিউটোরিয়ালের দাম আরো বৃদ্ধি করা হোক !

    আমি আপনার শিষ্য হতে চাই !
    অনেক ভালো ভাবে কাজ করে পারফেক্ট একজন ওয়েব ডিজাইনার হতে চাই ! আমার জন্য দোয়া করবেন স্যার !

    1. আপনার এত গুছানো এবং বিস্তারিত মন্তব্য পড়ে ভাল লাগল। সাথেই থাকবেন। আপনাকে ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

১০ মিনিটে Slider Revolution দিয়ে ওয়েবসাইটে Awesome Slider তৈরি করা শিখুন!

স্লাইডার যে কোন ওয়েবসাইটের জন্য এক অতি গুরুত্বপূর্ণ ইলিমেন্ট। আমাদের ওয়েব গুরু কোর্সে আমরা দেখেছি কিভাবে Raw কোড এডিট করে স্লাইডার তৈরি করা যায়। কিন্তু

Read More »
wordpress-theme-customization-course

ইনশা-আল্লাহ্‌ ২০২০ সালেই তৈরি হবে ৫০০ সফল ওয়েব ডিজাইনার, সুযোগ প্রত্যেকের জন্য!!!

আপনি কি এমন একটি সহজ, বৈধ এবং হালাল ইনকাম মাধ্যম খুজছেন যেটা থেকে মাত্র কয়েক মাসেই অনলাইন থেকে আয় শুরু করা যাবে? সত্যি বলতে অনলাইন

Read More »

আইটি বাড়ি থেকে যারা ডোমেইন হোস্টিং কিনেছেন তারা SSL সার্টিফিকেট অ্যাক্টিভ করবেন যেভাবে

আইটি বাড়ি ইদানিং ডোমেইন হোস্টিং সার্ভিস দেয়া চালু করেছে। ইতিমধ্যে অনেকেই আমাদের সার্ভিস ব্যবহার করছেন। সুখবর হচ্ছে আমাদের সকল হোস্টিং গ্রাহকদের জন্য আমরা SSL সার্টিফিকেট

Read More »
7-ways-to-earn-with-seo

SEO শিখে অনালাইনে উপার্জনের ৭ টি উপায় [কাজ করুন বিড ছাড়া] -এবার বড় কিছুর চেষ্টা করুন

SEO- Search Engine Optimization অনলাইনে সেলস এন্ড মার্কেটিং ডিপার্টমেন্টের অন্যতম বৃহৎ অংশ। সাধারন কথায় বলতে গেলে গুগলে বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে অনলাইন ভিত্তিক কোন

Read More »

আগামী ২০-৩০ বছরে চাকরী যেতে পারে ৬০-৮০% অসৃজনশীল পেশার চাকরিজীবীদের! বিশ্বাস হচ্ছে না? এটা পড়ুন

(নিচের লিখাটি হয়ত সবার বিশ্বাস হবে না, তবে হ্যা, পোস্টটি  বেশ কয়েকটি নামকরা পত্রিকা এবং এক্সাপার্টদের কেস স্টাডির প্রেক্ষিতে করা হয়েছে, পজিটিভ মেন্টালিটি থাকলেই কেবল পোস্টটি

Read More »
how to boost freelancing income

ওয়েব ডিজাইন/গ্রাফিক্স ডিজাইন সেক্টর যেটাই হোক না কেন, দেখুন SEO যেভাবে আপনাকে সহজে কাজ এনে দিতে পারে

আমরা সবাই জানি, মার্কেটিং হচ্ছে যে কোন ব্যবসার প্রধান অংশ। আর এটাও জানি যে ফ্রীল্যান্সিং মানেই এক ধরণের স্বাধীন চাকরি। কিন্তু এটা কয়জন জানি যে

Read More »